‘নগদ’ সেবা ব্যবহার করবেন যেভাবে

‘নগদ’ সেবা ব্যবহার করবেন যেভাবে

লেনদেনে গ্রাহককে দ্রুততা ও স্বাধীনতা দেবার লক্ষ্যে ১ অক্টোবর ২০১৮ তারিখে যাত্রা শুরু করে ডাক বিভাগের ডিজিটাল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’।

অনলাইন লেনদেনে লিমিট নিয়ে সমস্যার ক্ষেত্রে ‘নগদ’ খুবই উপযোগী একটা সেবা। কারণ বিকাশ, রকেটসহ অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং এর সেবা পরিচালিত হয় বাংলাদেশ ব্যাংকের বিধি বিধান অনুযায়ী। কিন্তু ‘নগদ’ পরিচালিত হচ্ছে বাংলাদেশ সরকারের ‘বাংলাদেশ টিউনাল অ্যাক্ট অ্যামেন্ডমেন্ট ২০১০’ এর ৩(২)(এফ) ধারার সুদৃঢ় এবং সুস্পষ্ট আইন অনুযায়ী।

‘নগদ’ হিসাব খুলবেন যেভাবে

আপনার এলাকার নিকটস্থ পোস্ট অফিস কিংবা অনুমোদিত নগদ এজেন্ট দোকানে গিয়ে আপনি নগদ একাউন্ট খুলতে পারবেন। বাংলাদেশের প্রতিটি বিভাগ,জেলা,থানা,গ্রাম,ইউনিয়ন পর্যায়ে পোস্ট অফিস ও পতিটি পাড়া-মহল্লায় নগদ এজেন্ট রয়েছে।

নগদ একাউন্ট খোলা বিকাশ বা রকেটের মতই সহজ। আপনার দুই কপি পার্সপোট সাইজের ছবি ও দুই কপি ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি নিয়ে নিকটস্থ পোস্ট অফিস বা অনুমোদিত নগদ এজেন্ট দোকানে গিয়ে একাউন্ট করতে পারেন।

 নগদ একাউন্টের সুবিধা

বিকাশ, ইউক্যাশ বা রকেটের মত একই ধরণের সুবিধা নগদে রয়েছে। তবে নগদ-এ অন্যসব অনলাইন ব্যাংকিংয়ের মত অতিরিক্ত চার্জ নেই।

‘নগদ’ হিসাব ব্যবহার করবেন যেভাবে

‘নগদ’ হিসাব ব্যবহার করতে হলে আপনার মোবাইল ফোনের সংযোগ থেকে USSD কোড *১৬৭# তে কল করুন অথবা প্লে-স্টোর থেকে নগদ অ্যাপ ইন্সটল করুন। তার আগে আপনার হিসাবটি একটিভ হতে হবে। যে কোন অপারেটরের গ্রাহকরা অ্যাপ ব্যবহার করে ‘নগদ’ হিসাবের মাধ্যমে লেনদেন করতে পারবেন।

গ্রাহক ফি ও উদ্যোক্তা কমিশন

১। ক্যাশ ইন: ফ্রি

২। ক্যাশ আউট: প্রতি ১ হাজার টাকার জন্য USSD কোডের জন্য ১৮.০০ টাকা এবং অ্যাপের জন্য ১৭.০০ টাকা।

৩। সেন্ড মানি (পিটুপি): প্রতি লেনদেনের বিপরীতে USSD কোডের জন্য ৪.০০ টাকা এবং অ্যাপ থেকে ফ্রি।

৪। উদ্যোক্তা কমিশন: USSD কোড অথবা অ্যাপের মাধ্যমে ক্যাশ ইন, ক্যাশ আউট এর জন্য প্রতি ১ হাজার টাকার বিপরীতে ৪.২৫ টাকা।

গ্রাহক লেনদেনের লিমিট

১। ক্যাশ ইন:

দৈনিক লিমিট: প্রতি লেনদেনের লিমিট ৫০ হাজার টাকা। দৈনিক লিমিট ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা। প্রতিদিন ১০ বার লেনদেন করা যাবে।

মাসিক লিমিট: প্রতি লেনদেনের লিমিট ৫০ হাজার টাকা। মাসিক লিমিট ৫০ লাখ টাকা। মাসে ৫০ বার লেনদেন করা যাবে।

২। ক্যাশ আউট:

দৈনিক লিমিট: প্রতি লেনদেনের লিমিট ৫০ হাজার টাকা। দৈনিক লিমিট ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা। প্রতিদিন ১০ বার লেনদেন করা যাবে।

মাসিক লিমিট: প্রতি লেনদেনের লিমিট ৫০ হাজার টাকা। মাসিক লিমিট ৫ লাখ  টাকা। মাসে ৫০ বার লেনদেন করা যাবে।

৩। সেন্ড মানি (পিটুপি):

দৈনিক লিমিট: প্রতি লেনদেনের লিমিট ৫০ হাজার টাকা। দৈনিক লিমিট ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা। প্রতিদিন ৫০ বার লেনদেন করা যাবে।

মাসিক লিমিট: প্রতি লেনদেনের লিমিট ৫০ হাজার টাকা। মাসিক লিমিট ৫ লাখ টাকা। মাসে ১৫০ বার লেনদেন করা যাবে।

৪। মোবাইল ফোন টপ আপ:

প্রতি লেনদেনের লিমিট ১ হাজার টাকা। দৈনিক এবং মাসিক কোন লিমিট নেই।

1 Comment

মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না। তারকা (*) চিহ্নিত ঘরগুলো অবশ্যপূরণীয়। *